রবিবার রাত ১২:৫৪

২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

২রা সফর, ১৪৪২ হিজরি

৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ শরৎকাল

‘২৪ ঘণ্টা বন্দর চালু থাকলে পাওয়া যাবে ৩ সুবিধা’

আগামী ১ আগষ্ট থেকে চট্টগ্রাম বন্দরের কার্যক্রম দিনে ২৪ ঘণ্টা ও সপ্তাহে সাতদিনই চালু থাকবে। একই সময় থেকে বেনাপল স্থল বন্দরের কার্যক্রম ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে। এর ফলে বন্দর ব্যবহারকারীসহ সবাই তিনটি সুবিধা পাবেন বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

আজ শুক্রবার চট্টগ্রাম কাস্টমস ও চট্টগ্রাম বন্দরের সার্বিক কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা জানান।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, বন্দর ব্যবহারকারীসহ সবাই তিন দিক থেকে উপকৃত হবেন। এর মধ্যে প্রথমত, বন্দর ব্যবহারকারীরা সার্বক্ষণিক সেবা পাবেন। আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সবসময় সংযুক্ত থাকতে পারবেন।

দ্বিতীয়ত,১২ ঘণ্টার পরিবর্তে ২৪ ঘণ্টা বন্দর চালু থাকলে সব ক্ষেত্রেই চাপ কমবে, দক্ষতা বাড়বে।

তৃতীয়ত, সারা দেশের  ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় একটি ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। যেহেতু রাতে পণ্য খালাস হবে সেজন্য জনগণের চলাচলে বাধা সৃষ্টি হবে না।

তিনি বলেন, ২ জুলাই প্রধানমন্ত্রী সচিবদের সঙ্গে সভা করেন। সে সময় তিনি চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন। আমদানি-রপ্তানি যাতে গতিশীলতা আনতেই তিনি এ নির্দেশ দেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে আমরা সবাই কাজ করছি। বিশেষ করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজ এবং নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে তৎপর আছেন।

নজিবুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে আজকে চট্টগ্রাম বন্দর সরেজমিনে দেখলাম। এর মাধ্যমে অনুভব করছি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ বাস্তবায়নে সমন্বিতভাবে কাজ চলছে। সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কাজ করার যে প্রবণতা ছিল এটা আছে। কিন্তু যেহেতু বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে সেজন্য বাড়তি সময়ের জন্য অন্যান্য যে সরকারি বিভাগ আছে বিশেষ করে লেনদেনের জন্য ব্যাংক ব্যবস্থা, পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বিএসটিআই, কোয়ারেনটাইন, আনবিক শক্তি কমিশন তাদের সার্বক্ষণিক উপস্থিতি প্রয়োজন। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

মো. নজিবুর রহমান বলেন, আগামীকাল নৌ পরিবহন সচিবসহ চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ, চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজ দ্বিপাক্ষিক ভিত্তিতে সব অংশীজনদের নিয়ে সভা করা হবে। আগামী ২৪ জুলাই চট্টগ্রাম বন্দর ও চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজ স্টেকহোল্ডারসহ সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ২৪ জুলাই আলোচনার মাধ্যমে একটি পথ নকশা হয়ে যাবে কীভাবে ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা বন্দর চালু রাখা যায়।

তিনি বলেন,  বন্দর ২৪ ঘণ্টা সচল রাখতে এনবিআরের পক্ষ থেকে যা যা করণীয় তা সবই করা হচ্ছে। বাড়তি জনবল দেওয়া হয়েছে। আলাপ আলোচনা করে কর্মকর্তাদের ৭ দিন ২৪ ঘণ্টা কাজ করতে প্রস্তুত করা হয়েছে। চট্টগ্রাম কাস্টমস একাডেমি, ভ্যাট, বন্ড থেকে চট্টগ্রাম কাস্টমসকে সহযোগিতা করা হবে।’

চেয়ারম্যান বলেন, এনবিআর পিএসসি থেকে প্রায় ৬০০ সহকারি রাজস্ব কর্মকর্তা পাচ্ছে। চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজে পর্যাপ্ত জনবল নিশ্চিত করা হবে। যন্ত্রপাতি নিশ্চিত করা হচ্ছে। স্ক্যানিং মেশিন নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউকে একটি স্ক্যানিং বিভাগ তৈরি করা হচ্ছে। যাতে আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে নন ইনক্লুসিভ ইন্সপেকশন করে দ্রুততার সাথে মালামাল খালাস করা যায়।

এনবিআর চেয়ারম্যান জানান, আগামী ১ আগস্ট ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চট্টগ্রাম ও বেনাপোল বন্দরের ২৪ ঘন্টা সেবা প্রদানের কার্যক্রম উদ্ধোধন করবেন বলে আশা করা যাচ্ছে।

এসময় বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল খালেদ ইকবাল, এনবিআর সদস্য, চট্টগ্রাম কাস্টমস কমিশনার আবদুল্লাহ খান, সিএন্ডএফ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন বাচ্চুসহ এনবিআরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Comments are closed.







© সকল স্বত্ব- সমাজ নিউজ -কর্তৃক সংরক্ষিত
২২ সেগুনবাগিচা, ৫ম তলা, ঢাকা- বাংলাদেশ। মোবাইল: ০১৭১১-৩২৪৬৬০, ০১৭১৩-৫১২৫৮২।
ই-মেইল: news@somajnews.com, ওয়েব: www.somajnews.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

ডিজাইন: একুশে