মঙ্গলবার রাত ৩:৩৪

২৯শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

৪ঠা জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ হেমন্তকাল

নাটকের পর শুটিংয়ের অনুমতি মিলল চলচ্চিত্রে

নাটকের পর এবার চলচ্চিত্রে শুটিংয়ের অনুমতি মিলেছে। ৫ মে (শুক্রবার) থেকে শুটিং করা যাবে। যদিও করোনাভাইরাসের প্রকোপ এখনো থামেনি। বরং প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা।বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির সিদ্ধান্ত, ৫ জুন থেকে চলচ্চিত্রের শুটিং করা যাবে। শুধু শুটিং নয়, চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত অন্য কাজও করা যাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

এর আগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নাটকের শুটিং করার অনুমতি দেয় নাট্যনির্মাতাদের সংগঠন ডিরেক্টরস গিল্ড। গত ২৮ মে আন্তসংগঠনের জরুরি সভা শেষে সিদ্ধান্ত হয়, ১ জুন থেকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুটিং করা যাবে।

এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘গতকাল বিকেলে আমরা সমিতির কার্যালয়ে এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগামী শুক্রবার থেকে চলচ্চিত্রের শুটিং করা যাবে। শুধু শুটিংই নয়, ডাবিং, এডিটিংসহ চলচ্চিত্রের সব ধরনের কার্যক্রম শুরু করার অনুমতি দিয়েছি। তবে সেখানে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব কাজ করতে হবে।’

খসরু আরো বলেন, ‘দীর্ঘদিন চলচ্চিত্রে অচলাবস্থা বিরাজ করছে। করোনার এই সময়ে চলচ্চিত্রের সব কাজ বন্ধ থাকায় হাজার কোটি টাকার লোকসান হয়েছে। এমন অবস্থা চলতে থাকলে আমাদের অবস্থা আরো খারাপ হয়ে যাবে। নতুন বেশ কয়েকটি ছবির শুটিং শুরুর জন্য প্রস্তুতি ছিল। আবার বেশ কিছু চলচ্চিত্রের শুটিং অর্ধসমাপ্ত, যে কারণে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তা ছাড়া আমরা জানি না করোনার এই প্রকোপ কত দিন থাকবে। যদি জানতাম আগামী দুই মাস বা তিন মাস পর করোনার প্রকোপ থেমে যাবে, তবে শুটিং বন্ধ রাখতাম। অনির্দিষ্টকালের জন্য তো আর সব কাজ বন্ধ রাখা সম্ভব নয়।’

গতকালের সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, মহাসচিব বদিউল আলম খোকন, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলমসহ বেশ কয়েকজন নেতা। গত ১৯ মার্চ থেকে বন্ধ চলচ্চিত্রের সব ধরনের শুটিং।







© সকল স্বত্ব- সমাজ নিউজ -কর্তৃক সংরক্ষিত
২২ সেগুনবাগিচা, ৫ম তলা, ঢাকা- বাংলাদেশ।
ই-মেইল: news@somajnews.com, ওয়েব: www.somajnews.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

ডিজাইন: একুশে